Filter Showing 1–25 of 34 results

  • ৳ 650.00
    বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ-  হুডি ডেলিভারি টাইম সাধারণ ডেলিভারি টাইমের থেকে বেশি লাগবে। সাধারণত ৭-১০ দিনের Expected ডেলিভারি টাইম।

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • ৳ 450.00

    অক্টোবর ১৮, ২০১৮, ঠিক এই দিনে বাংলা সঙ্গীতের অবিসংবাদিত শিল্পী আইয়ুব বাচ্চু মহাকালের পথের অন্তিম যাত্রা করেন।

    “এই রুপালী গীটার ফেলে
    একদিন চলে যাব দূরে বহুদূরে
    সেদিন চোখে অশ্রু তুমি রেখ
    গোপন করে … ”

    তাঁর গীটারের ঝঙ্কার থেমে গেছে। আমাদের পরিচিত কোলাহলে তাঁর গীটারের অদ্ভুত সম্মোহীনি সুর তুলবেনা। আমরা চোখে অশ্রু চেপেই তাঁকে আজও স্মরণ করছি। আজন্ম দুঃখ পুষে রাখা ঘর ছাড়া সুখী ছেলেটি কোন অজানায় হারিয়ে গেছে অভিমান নিয়ে। বাংলা রকের রাজপুত্রের কালজয়ী সব সৃষ্টিকে স্মরণ করে এই বাংলার গঞ্জি এই ট্রিবিউট টিশার্টটি প্রকাশ করছে।


    রুপালী গীটার Memorabilia:
    “রুপালী গীটার” এল আর বির দ্বিতীয় এ্যালবাম “সুখ”-এ প্রকাশিত একটি কালজয়ী রক নাম্বার। এবং এটি বাংলা রকের সব থেকে জনপ্রিয় গানেরও একটি। গানটি প্রকাশিত হয় ২৪ জানুয়ারি ১৯৯৩। গানটির গীতিকার কায়সার আহমেদ চৌধুরী। ধারনা করা হয় “চলো বদলে যাই” -এর পরে কন্সার্টে ‘এল আর বী’র বহুল বাজানো একটি ট্র্যাক। গানটি পরবর্তীতে ১৯৯৬ সালের ১৫ই সেপ্টেম্বরে এল আর বীর একমাত্র লাইভ আনপাল্গড এ্যালবাম “ফেরারি মন” নতুন করে পরিবেশন করা হয়।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 580.00৳ 650.00
    বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ-  হুডি ডেলিভারি টাইম সাধারণ ডেলিভারি টাইমের থেকে বেশি লাগবে। সাধারণত ৭-১০ দিনের Expected ডেলিভারি টাইম।

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • ৳ 500.00

    আইয়ুব বাচ্চু (রবিন), বাংলাদেশের সংগীতের সব থেকে উজ্জ্বলতম নক্ষত্র। স্বাধীন বাংলাদেশে রক ও পপ সংগীতের সূচনা হয়েছিল গুরু আজম খানের হাত ধরে। সেই কিংবদন্তী আজম খানকে গাইতে দেখেই চট্টগ্রামের এক কিশোর হাতে গিটার হাতে তুলে নিয়েছিল। গল্পের বাকিটা একটি রূপকথা। তিন দশকেরও বেশি সময় তিনি বাংলা সঙ্গীতকে সমৃদ্ধ করেছেন। উপমহাদেশের শ্রেষ্ঠ এই গিটারিস্ট তার গুরু আজম খানকেও ছাড়িয়ে গিয়েছিলেন স্বমহিমায়। তাই শ্রদ্ধা করে তাঁকে ডাকা হয় “Voice of Bangla Rock”।

    তাঁর প্রতিষ্ঠিত ব্যান্ড এল আর বি কে সাথে নিয়ে ১৯৯১ সালে শুরু করেছিলেন এক স্মরণীয় যাত্রা। সেই যাত্রায় আমরা পেয়েছিলাম কালজয়ী অজস্র গান। বাংলা রক কিভাবে আগাবে সেই গতিপথ এঁকে দিয়েছিলেন আইয়ুব বাচ্চু। তিনি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন বাংলা রক শুধুই পশ্চিমা গানের ধারাকে অনুকরণ নয় বরং আমাদের নিজস্ব সুর, কম্পোজ ও বাজনার সমন্বয় হতে পারে। অথচ সেই পথ পেরুতেই পাড়ি দিয়েছিলেন বিরূপ স্রোত আর দুর্গম পথ। তাই প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে তিনি বেঁচে থাকবেন অনন্য অনুপ্রেরণা হয়ে।

    তিনি একাধারে গায়ক, গিটারিস্ট, গীতিকার, সুরকার, ও চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক শিল্পী ছিলেন। মূলত রক ঘরানার কন্ঠের অধিকারী হলেও আধুনিক গান, শাস্ত্রীয় সঙ্গীত এবং লোকগীতি ঘরানায়ও তিনি কাজ করেছেন। ভালোবাসতেন গীটার। গিটার এর এক অসাধারণ সংগ্রহ তাঁর ছিল। বাংলার গঞ্জি বাংলাদেশের এই অনন্য প্রতিভাবান কিংবদন্তীকে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করছে।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 400.00

    যার উৎসাহ ও আইডিয়া থেকে এই গঞ্জিটির আত্মপ্রকাশ তিনি প্রিয় আরিফ আর হোসেইন। সোশ্যাল মিডিয়াতে তাঁর পজিটিভ ইনফ্লুয়েন্স সমগ্র বাংলাদেশকে নতুন পথে উজ্জীবিত হওয়ার শক্তি জোগান দেয়। এই ডিজাইনটিতে তাঁর সেই দৃষ্টিভঙ্গি ও অনুপ্রেরণার বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। কাজী নজরুল ইসলামের বিখ্যাত ছড়া “খোকার সাধ”- এ বলেছিলেন “আমরা যদি না জাগি মা কেমনে সকাল হবে?”। ঠিক সেই ছড়ার মর্মবাণী থেকেই নিঃসারিত যেন “আজ না হলে কবে আমরা নয়তো কে?। সমাজ ও দেশ বদলের জন্য জেগে উঠার দায়িত্ব তো আমাদেরই ছিল।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • আজ রবিবার

    ৳ 450.00

    ১৯৯৬ সালে বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রদর্শিত বিখ্যাত নাটক “আজ রবিবার”। নাটকটি লিখেছিলেন বাংলা সাহিত্যের  কিংবদন্তী উপন্যাসিক হুমায়ূন আহমেদ। নাটকটির পরিচালনায় ছিলেন মনির হোসেন জীবন। ৯০-এর দশকের বাঙ্গালি ছোটপর্দার বিনোদনের অন্যতম আকর্ষণ ছিল এই নাটকটি। ৭ পর্বের এই নাটকটির গল্প,  অভিনয় ও পরিচালনায় অসামান্য সংমিশ্রণে সেই সময়ে দর্শকদের মনে দীর্ঘ রেখাপাত করেছিল। মূল চরিত্র গুলির ভেতর উল্লেখযোগ্য দাদাজান (আবুল খায়ের), জামিল (আবুল হায়াত), আনিস (জাহিদ হাসান), আসগর (আলী জাকের), তিতলি (শাওন), মীরা (সুবর্ণা মুস্তফা), কঙ্কা (শিলা আহমেদ), মতি (ফারুক আহমেদ), হিমু (ফাজলুল কবির) ও ফরহাদ (আসাদুজ্জামান নূর)। সেই ৯০ দশকের রঙ্গিন ফ্রেমের একটুকরো স্মৃতি তীর্থের ইলাস্ট্রেশনে বাংলার গঞ্জিতে উঠে এসেছে।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 430.00

    বাংলায় কিভাবে “Stop your nonsense” বলবেন?


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 430.00

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 460.00

    পারলে এইটা গায়ে দিয়া এলাকায় ঘুইরো।

    প্রিন্টঃ সিলভার মেটালিক প্রিন্ট


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 430.00

    বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর ছিল গৌরব দীপ্ত ভূমিকা। ১৯৭১ সালেই মাত্র দুটি বিমান ও একটি হেলিকপ্টার নিয়ে যাত্রা শুরু করেছিল বাংলাদেশ বিমান বাহিনী। একটি DC -3  DAKOTA, একটি DHC OTTAR এবং একটি ALOUETTE -III নিয়ে মুক্তি বাহিনীর কৌশলগত আকাশ প্রতিরক্ষা ও আক্রমণকে শক্তিশালী করেছিল।

    ১৯৭১ সালের সদ্য প্রতিষ্ঠিত বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রধান হিসেবে কমিশন লাভ করেন এয়ার চিফ আব্দুল করিম খন্দকার। বিমান বাহিনী প্রধান এর নাম আব্দুল করিম খন্দকার তাই খন্দকার এর প্রথম অক্ষর K কে বেছে নেয়া হয় প্রথম অ্যাটাক উইনিট ফরমেশন এর কোড নেইম হিসেবে। আর এভাবেই আত্মপ্রকাশ করে বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রথম দুর্ধর্ষ এয়ার কমব্যাট উইনিট “কিলো ফ্লাইট”। এই উইনিট মোট ৪৬টি সফল দুঃসাহসী অভিযান সম্পন্ন করেছিল।

    তিনটি বিমানই তৎকালীন ভারত সরকারের দেয়া হলেও আমেরিকার MacDonnell Doglas এর তৈরি DC-3 Dacota বিমানটি মূলত যোধপুর এর মহারাজার ব্যক্তিগত বিমান। এটি মূলত মুক্তিবাহিনীর পরিবহন বিমান হিসেবে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীতে সেই সময় যুক্ত হয়। এর পরেও এটিকে ১০০০ পাউন্ড পর্যন্ত ওজনের বোমা ক্যারি করার উপযোগী করে প্রস্তুত করা হয়। যদিও পরে এই বিমানটিকে বাংলাদেশ মুক্তিবাহিনীর সর্বাধিনায়ক জেনারেল ওসমানীর ব্যবহারের জন্য নিয়োজিত করা হয়।

    কানাডার de Havilland এর তৈরি DHC-3 Otter বিমান ও ফ্রান্স এর তৈরি Alouette-III হেলিকপ্টারটিকে মূলত মিসাইল রকেট নিক্ষেপের উপযোগী করে প্রস্তুত করা হয়।

    বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর প্রথম অপারেশনাল উইনিট “কিলো ফ্লাইট” এর অবিস্মরণীয় গৌরব দীপ্ত ইতিহাসকে স্মরণ করে বাংলার গঞ্জি এই বিশেষ ডিজাইনটি প্রকাশ করছে।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 420.00

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • ৳ 650.00
    বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ-  হুডি ডেলিভারি টাইম সাধারণ ডেলিভারি টাইমের থেকে বেশি লাগবে। সাধারণত ৭-১০ দিনের Expected ডেলিভারি টাইম।

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • ৳ 480.00

    সঠিক সুযোগের অভাবে আমরা সবাই চরিত্রবান।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়।

  • চুলকায়?

    ৳ 430.00

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • জয় বাংলা

    ৳ 400.00

    বাংলাদেশের জন্ম হয়েছিল যে অকুতভয় উচ্চারণে তার নাম “জয় বাংলা”। বুলেটের থেকে শক্তিশালী, দাবানলের থেকেও ক্ষিপ্র এই অমিত শব্দ দ্বয় এ দেশের সকল মহান আন্দোলনের ও ইতিহাসের অবিচ্ছেদ্য অংশ। মুক্তি সংগ্রাম থেকে শুরু করে বাঙ্গালি জাতির আত্মপরিচয়ে সর্বত্রই এই শব্দ দ্বয়ের দৃপ্ত ও বজ্রকন্ঠি বিচরন আমাদেরকে এনে দেয় ইস্পাত কঠিন শপথের দৃঢ়তা। “জয় বাংলা” শুধু মাত্র একটি ঐতিহাসিক স্লোগানই নয় এটি আমাদের আত্মপরিচয়ে প্রথম প্রকাশ। এটি সৎ, ন্যায় নিষ্ঠ, সমৃদ্ধশালী ও একতাবদ্ধ জাতিগঠনের এক অবিসংবাদিত অংশীদার।

    ডিজাইন ও কনসেপ্টঃ  www.riverinkart.com


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ডেলে দেই

    ৳ 390.00

    অতি তরল হাস্যরসের পেছনের গল্প খুঁজতে না যাওয়াই উত্তম। ‘ঢেলে দিন’ বা ‘ডেলে দিন’ যেভাবেই দিন ভালোবেসে দিয়েন।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়।

  • ৳ 440.00

    বাংলাদেশ ও আধুনিক বাংলা সাহিত্যের অন্যতম প্রধান কবি শামসুর রাহমানের বিখ্যাত কবিতা “আমি তারায় তারায় রটিয়ে দেব” অবলম্বনে।

    ডিজাইনঃ  রিভার ইঙ্ক


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 430.00

    কিংবদন্তী গীতিকার ও সুরকার আব্দুল লতিফের লেখা ও সুর করা কাল উত্তীর্ণ গান “দাম দিয়ে কিনেছি বাংলা”। গানটি আমাদের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে রেখেছিল এক অবিস্মরণীয় ভূমিকা। গানটির প্রতিটি লাইনে আজন্ম শোষিত বাংলা ও বাঙ্গালির রূপরেখা ফুটে উঠে। পরবর্তীতে এই গানটি প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের কাছে পৌঁছে দেয়ার প্রধান রূপকার ফকির আলমগীর। শুধু স্বাধীনতা যুদ্ধেই নয় পরবর্তীতে গানটি বাংলাদেশের শোষিত ও বঞ্চিত বাঙ্গালির সংগ্রামের সুরে পরিণত হয় ফকির আলমগীরের দরদ ভরা ভরাট কণ্ঠে।

    ফকির আলমগির; বাংলা গণসংগীতের এই অবিসংবাদিত শিল্পীর জন্ম ১৯৫০ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুরে। বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে গনসঙ্গীত কণ্ঠে তুলে উদীপ্ত করেছেন আপামর স্বাধীনতাকামী মানুষকে। তিনি বহুল পরিচিত স্বাধীন বাংলা বেতারের শব্দ সৈনিক হিসেবে। স্বাধীনতা যুদ্ধের পরে বাংলাদেশের নানা ক্রান্তিকালে গণসংগীতের মাধ্যমে তার শিল্পী সত্ত্বার দায়িত্বের পরিচয় দিয়েছন নিয়মিত। ফোক ও লোকজ সুরে তাঁর গাওয়া অনেক গান আমাদের সঙ্গীতকে সমৃদ্ধ করেছে। বাংলা সঙ্গীতে বিশেষ অবদানের জন্য গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার ১৯৯৯ সালে ফকির আলমগীরকে একুশে পদকে ভূষিত করে।

    আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে হারিয়ে যাওয়া অগণিত প্রানের মহান স্মৃতির প্রতি সশ্রদ্ধ আবেগে গেয়ে যাই “আমি দাম দিয়ে কিনেছি … বাংলা কারোর দানে পাওয়া নয়”

  • ৳ 450.00

     


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • দেশপ্রেম

    ৳ 400.00
    দেশপ্রেম খুবই প্রাকৃতিক একটা বিষয়, জন্মের পর থিকাই আমরা যে যার মত এইটা বুকে লয়া বেড়াই, দেখাই, ব্যবসা করি !  এইতো……..
    কালার সতর্কতাঃ
    • এক্সট্রিম ডিটারেজেন্ট ও ব্লিচিং ব্যবহারের কারনে রং পরিবর্তন হতে পারে।
    • প্রথম ২-১টি ওয়াসে সামান্য রং উঠতে পারে। যেটা স্বাভাবিক। কাপড়ের মূল রং এ কোন ক্ষতি বা পরিবর্তন আসবে না।

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 650.00
    বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ-  হুডি ডেলিভারি টাইম সাধারণ ডেলিভারি টাইমের থেকে বেশি লাগবে। সাধারণত ৭-১০ দিনের Expected ডেলিভারি টাইম।

    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • ৳ 500.00

    হ্যাপি আখন্দ, নিলয় দাস, শেখ ইশতিয়াক ও লাকি আখান্দ!
    বাংলার গঞ্জি সশ্রদ্ধ কৃতজ্ঞতা জানাতে চায় আমাদের সংগীতের এই চার কিংবদন্তীকে। আমাদের বাংলা সংগীত যাদের সুরের মূর্ছনায় পূর্ণতা পেয়েছে। এখনো বিকেলের বাতাসে ভেসে বেড়ায় “আবার এলো যে সন্ধ্যা” কিংবা কোন বিষণ্ণতায় বাজে “এই নীল মণিহার এই স্বর্ণালী দিনে তোমায় দিয়ে গেলাম”। হয়তো কোন যুগল অবাক ভালোবাসায় মুখোমুখি দাঁড়িয়ে ভাবে “তোমার ওই দুটি চোখে আমি হারিয়ে গেছি, আমি বোঝাতে তো কিছু পারি না, নীলাঞ্জনা! বাংলা ক্ল্যাসিক্যাল গীটারের কিংবদন্তী বলা হয় নিলয় দাসকে। নিলয়ের চলে যাওয়া আজও তাঁর গানের সুরেই যেন বাধা, “সেই যে চলে গেলে, আর হায় এলে না ফিরে”।

    সব গানেরই সুর থাকে অথচ কিছু গানের প্রান থাকে!


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 
  • বাগের দুদ

    ৳ 420.00

    ভুল বানানের ঠিক চিঠির মতোন বিষয় এটা। অভিধানের কাঁটাতারে বানান আটকে যাইতে পারে বটে; কিন্তু আবেগ? সম্ভব না। সম্ভব না বলেই অসম্ভব বাঘের দুধের মতোন জিনিসেও আমাদের আপত্তি নাই। আসল কথা তো ভালোবাসা। না? তো যখন যেইভাবে যেম্নে পসিবল/ইমপসিবল আমরা ভালবেসে যাবো; এনি টাইম-এনিহাউ।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

  • ৳ 430.00

    যখন বলা হয় এটার সাথে পলিটিকসের কোনো রিলেশন নাই, দেখা যাবে লোকজন সেটাকেই খুব পলিটিক্যালি নিচ্ছে। আর জিনিসটা যদি হয় কলা, তাহলে স্যাটায়ার ভালো জমে। কারন বাংলায় কলা দেখানো একটা বাগধারা (Phrase) আছে। মানে  আপনি কাউকে বেকুব বানায় দিলেন আরকি। তো আমরা না চাইলেও, কলায় যত পুষ্টিই থাক, আদতে কলা নিরীহ কিছু না। সাইড ইফেক্ট আছে এর। মেক্সিকোতে কলাচাষীদের উপর চালানো এক কুখ্যাত গণহত্যার কথাও ইতিহাসে আছে। যেটার কথা মার্কেজ তার ‘নিঃসঙ্গতার একশ বছর’ উপন্যাসেও বলছেন। তো দেখা যাচ্ছে কলা আমি মিন বানানা ইজ নট এ সেফ ফ্রুট। সো বি কেয়ারফুল! 


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়। 

     

  • ৳ 440.00

    বাংলাদেশের দক্ষিণ পূর্ব সীমান্ত সংলগ্ন পাহাড়ি জনপদ। এখানে সবুজ পাহাড় গুলো যেন নীল আকাশের কোল ঘেঁষে দাঁড়িয়ে থাকে। পাহাড়ি বিচিত্র প্রাণীকুল আর ঝর্নার দেখা মিলবে এই জনপদে। রয়েছে অনেক হ্রদ, নদী আর ঝিড়ি। বান্দরবান বাংলাদেশের চমৎকার বর্ণিল সংস্কৃতির পাহাড়ি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীদের আবাসস্থল।

    এই বিশেষ টিশার্টটি আমরা ডিজাইন করেছিলাম বান্দরবানের সমৃদ্ধ সংস্কৃতি, জীব বৈচিত্র্য, অপরূপ প্রাকৃতিক নিসর্গ কে ধারণ করার জন্য। আপনাদের ভাল লাগলেই আমাদের প্রচেষ্টা সার্থক হবে।


    © এই ডিজাইনটির কপিরাইট  বাংলার গঞ্জি সংরক্ষণ করে।
    বিনানুমতিতে ব্যবহার বা পুনরুৎপাদন দণ্ডনীয়।